রাজস্বে ঘাটতি হবে ৮০ হাজার কোটি টাকা

প্রকাশিত: ১১:১১ পূর্বাহ্ণ, মে ২৭, ২০২০

চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ে ৮০ হাজার কোটি টাকার বেশি ঘাটতির মুখে পড়তে যাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। করোনা মহামারি কারণে আগামীতে আরো বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

সম্প্রতি এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম এমন চিত্র উপস্থাপন করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে অবগত করেছেন। এনবিআরের ঊর্ধ্বতন একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। চিঠিতে তিনি বলেন, এনবিআরের চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রাও অর্জিত হবে না। আর ২০২০-২১ অথর্বছরেও রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব নাও হতে পারে।

চিঠিতে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছর শেষে রাজস্ব আদায় ২ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকা হতে পারে। চলতি অর্থবছরের মূল লক্ষ্যমাত্রা থেকে এনবিআরের রাজস্ব আদায় কম হবে ১ লাখ ৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা থেকে আদায় কমবে প্রায় ৮০ হাজার ৫০০ কোটি টাকা।

প্রায় ১৬.২৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধিতে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে এনবিআরকে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়েছিল। যদিও সম্প্রতি এ লক্ষ্যমাত্রা কমিয়ে ৩ লাখ ৫০০ কোটি টাকা করা হয়। করানা দুর্যোগ দীর্ঘায়িত হলে এই সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা একপ্রকার অসম্ভব। এনবিআর চেয়ারম্যান গত ১৪ মে অর্থ মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে চিঠি দেন।

আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে এনবিআরের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা ধরা হচ্ছে বলেও জানান এনবিআর চেয়ারম্যান। সার্বিক বিষয়ে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবি মির্জ্জা মো. আজিজুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘রাজস্ব সংগ্রহের গতি-প্রকৃতি অনুযায়ী এবার শুরু থেকেই ঘাটতি ছিল। কারণ, লক্ষ্যমাত্রা আগেই বেশি ধরা হয়েছিল। করের জাল যতটুকু বিস্তার করার দরকার ছিল, ততটুকু বিস্তার হয়নি। যদিও কিছু কিছু চেষ্টা হয়েছে। যারা করযোগ্য আয় করেন প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তি তাদেরকে করের আওতায় আনতে হবে। যদিও সেটি সময়সাপেক্ষ বিষয়। এ মুহূর্তে করাও কষ্টসাধ্য।’