বাবাকে মনে পড়ে- কামরান আহমেদ রাজীব

বাবাকে মনে পড়ে- কামরান আহমেদ রাজীব

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০২০

আজ আমার বাবার ৫ম তম মৃত্যু বার্ষিকী,২০১৬ সালের ১৭ই জুলাই ঠিক এমন একটি দিবাগত রাত ২টা ১০ মিনিটে বাবাকে হারাতে হয়েছে, আমাদের নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবা আমাদের ছেড়ে চলে যান, যেখানে মা উপস্থিত ছিলো,তার পাশের রুমে আমি, তার পশের রুমে বড় ভাই ছিলো হঠাৎ মা’র চিৎকার করে উঠলো সঙ্গে সঙ্গে বড় ভাই আমি দৌড়ে গেলাম বড় প্লার্স দেখে বুঝতে পারছে বাবা আর নেই কিন্ত পাহাড় সমন কষ্ট বুকে চেপে আমাকে মা কে ছোট ভাই বলছে বাবার কিছু হয়নি, তার একে একে সবাই যখন এসে কান্না কটি শুরু করলো সেদিনেই বুঝেছি বাবাকে হারানোর শোকটা কতটা কষ্টের ।

খুব কাছে থেকে দেখেছি বাবার চলে যাওয়াটা,আমি, বড় ভাই,এজাজ, মেঝ ভাই পাথর হয়েগেছি অন্যদিকে মাকে ডেকে বলছি মা, বাবার কিছু হয়নি বাবা ঠিক আছে, তুমি কেদনা !বিশ্বাস হচ্ছিল না আমার। সেই সময়টা মনে পড়লে দমবন্ধ হয়ে আসে । বাবাকে হারিয়ে আমি পাথর হয়ে গেছিলাম ।

আজ বাবার সাথে পথ চলার সময় গুলকে অনুভব করছি, চলার জীবনে বাবার ছায়াতেই বড় হয়েছি, বাবার ভালোবাসা, বাবার স্নেহ, বাবার আদর আজও আমার স্মৃতিতে সতেজ হয়ে ভাসে। আমার বাবা ছিলেন আমার আর্দশ। আজ বাবাকে আমার খুব প্রয়োজন ছিলো বাবার সাথে আমার অনেক কথা বলার ছিলো আমি বলতে পারিনি তাই মনের লুকানো কথাগুলো আজও কারো সাথে ভাগাবাগি করতে পারিনি।

বাবার আর্দশ, বাবার সততা, বাবার নৈতিকতা আমার কাছে অতুলনীয়। যাদের বাবা আছে তারা জানেনা বাবার ছায়াটা কতটা তার সন্তানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ । বাবাহীন পৃথিবীটা বেশ অদ্ভুত ! যাদের বাবা নেই তারা কেবল জানেন বাবার অনুপুস্থিতিটা কেমন । এক সময় বাবার বুদ্ধিছাড়া কোন কাজেই সফল হওয়া যেতো না, আর আজ বাবাকে ছাড়া চলতে হচ্ছে প্রতিটা মুহূর্ত ।

বুদ্ধিহীন অবস্থায় চলতে হচ্ছে এই অচেনা জীবন শহরতলীতে। কিন্তু বাবার সেই স্মৃতি বাবার সেই উপদেশমূলক কথাগুলো আজও আমার অন্তরকে গভীরভাবে নাড়া দিয়ে যায়! যার আদর্শ আমাকে মানুষ হতে সাহায্য করছে। বেশ কিছু আশা,স্বপ্ন ,কাজ অপূর্ণ থেকে গেল আমার, সবাই আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন।