পেকুয়ার পাহাড়ী এলাকায় রবি-এয়ারটেলের টাওয়ার উদ্বোধন

প্রকাশিত: ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২০

গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়াঃ

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলা উপজেলার দূর্গম পাহাড়ি এলাকা টইটংয়ের সোনাইছড়ি রমিজ পাড়া এলাকায় রবি/এয়ারটেল কোম্পানীর টাওয়ার উদ্বোধন করা হয়েছে। এর ফলে দুর্গম ওই পাহাড়ী এলাকায় নেটওয়ার্ক সুবিধার আওতায় এসেছে। গতকাল ২০ নভেম্বর (শুক্রবার) বিকালে আনুষ্টানিকভাবে উপজেলার টইটং ইউনিয়নের রমিজ পাড়া গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমদের বাড়ির সামনে রবি-এয়ারটেল টাওয়ারটি উদ্বোধন করা হয়েছে। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও টইটং ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন আহমদ রবি-এয়ারটেল কোম্পানীকে টাওয়ার নির্মাণের জন্য তার নামে প্রতিষ্টিত রমিজ উদ্দিন আহমদ কমপ্লেক্স থেকে জায়গা দিয়েছেন। এর অংশ হিসেবে রবি এয়ারটেল কোম্পানি ওই স্থানে টাওয়ার নির্মাণকাজ সমাপ্ত করে শুক্রবার আনুষ্টানিকভাবে উদ্বাধন করে।

এ উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমদের উদ্যোগে এক সুধী সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। সমাবেশ ও টাউয়ার উদ্বোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন টইটং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারান সম্পাদক চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী। বীর মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে ও টইটং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো: ইলিয়াছের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন টইটং ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান হাজী শাহাব উদ্দিন, রবি কোম্পানীর এরিয়া ম্যানেজার মোস্তফা শওকত ইমরান, টেরিটরি ম্যানেজার রুবেল হোসেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি সদস্য নবী হোছাইন, সমাজ সেবক মোহাম্মদ ফারুক, আ’লীগ নেতা মজিবুর রহমান, সমাজ সেবক মোহাম্মদ শাকের, ছাত্রলীগ নেতা মিশকাত প্রমুখ। টইটং ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন আহমদ তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন, ডিজিটাল সময়ে মানুষ মুঠোফোনের গুরুত্ব অপরিসীম। সেখানে আমরা যারা দুর্গম এলাকায় বসবাস করছি তারা নেটওয়ার্ক সমস্যায় ভোগছি। এখানে মোবাইল কোম্পানীর টাওয়ার নির্মিত হওয়ায় রমিজপাড়াসহ টইটং ইউনিয়নের দুর্গম এলাকা সমূহ নেটওয়ার্ক সুবিধার আওতায় এসেছে। পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বারবাকিয়া ও শিলখালীরও পাহাড়ী বেশ কিছু এলাকায় মুঠোফোনের নেটওয়ার্ক সমস্যা থেকে উত্তরণ পাবে।

তিনি বলেন, রাস্তাঘাটের উন্নয়নের প্রয়োজন রয়েছে। হাজী বাজার থেকে রমিজপাড়া পর্যন্ত এ সড়কটি অতীব জনগুরুত্বপূর্ন সড়ক। উন্নয়ন হয়নি এ সড়কটি। বিপুল মানুষ যোগাযোগ ব্যবস্থা থেকে বঞ্চিত। রমিজপাড়াসহ আরও বিশাল এলাকায় এখনো বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসেনি। আধুনিকযুগে বিদ্যুৎ মানুষের মৌলিক অধিকার। চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, এখানে একটি স্কুলের প্রয়োজন। একটি বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য সরকারীভাবে জরিপ হয়েছে। আমি আশা করছি, রমিজ উদ্দিন আহমদের নামে যে স্কুলের প্রস্তাবনা প্রেরণ করা হয়েছে সেটি অগ্রাধিকার দেওয়া প্রয়োজন। এ এলাকাটি শিক্ষা বিস্তারে পিছিয়ে রয়েছে। তাই রমিজ পাড়ায় একটি স্কুলের বেশি প্রয়োজন।