জনবল সংকটে লামা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস

একে সুমন চৌধুরী,লামা : বান্দরবান পার্বত্য জেলার লামা উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিস দীর্ঘদিন ধরে জনবল সংকটে ভুগছে। ফলে অফিসের কার্যক্রম কোনোরকমে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। তারপরেও বেশ সুনামের সহিত কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

এ জনবল সংকট নিরসন হলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের কার্যকলাপে গতিশীল আসবে। এ সংকটের কারণে বিভিন্ন প্রকার দাপ্তরিক কাজ থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষক-শিক্ষিকারা। শিক্ষকরা শিক্ষা অফিসে প্রাতিষ্ঠানিক কোনো কাজে আসলে জনবল সংকটের কারণে তাদের সময়ের কালক্ষেপণ হয়। জনবল সংকট প্রসঙ্গে উপজেলা শিক্ষা অফিসার তপন কুমার চৌধুরী জানান, উপজেলায় সহকারী শিক্ষা অফিসার শূন্য পদে তিনজনের স্থলে ৩জন খালি।

এছাড়াও প্রধান শিক্ষক পদে ১১টি, সহকারি শিক্ষক ১৫টি শূন্য রয়েছে। একমাত্র টিইও পারিবারিক কারণে অফিস ছুটি নিলে স্থবির হয়ে পড়ে অফিসের সমস্ত কার্যক্রম। তাই এ সংকট থেকে নিরসনের জন্য জনবল বৃদ্ধির কোনো বিকল্প নেই। জনবল বৃদ্ধি পেলে কাজের গতি বাড়বে।

তিনি আরো বলেন, উপজেলায় ২০১৭ সালে পিএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৩৪১ জন। ২০১৮ সালে২৭২ জন ও ২০১৯ সালে লক্ষ্য রয়েছে ১৭৮ জন। জনবল সংকটের এ বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও এখন পর্যন্ত জনবলের শূন্যস্থান পূরণের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। উপজেলায় ৯০ টি সরকারি (৮৫ ও বেসরকারি ৫ টি) প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্য শিক্ষক এর দাপ্তরিক কাজ সম্পন্ন করতে বেশ হিমশিম খেতে হচ্ছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে। তাই এ দ্রুত জনবল সংকট দূর করে দাপ্তরিক কাজ সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক,অভিভাবক মহল। আরও পার্বত্য অঞ্চলের মধ্য শুধুমাত্র লামা উপজেলায় ৯০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড দ্যা মিল চালু রয়েছে বলেও তিনি জানান।

Related posts

Leave a Comment