করোনা পরিস্থিতিতে বেসামাল কুমিল্লা

প্রকাশিত: ৬:২০ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০২০

মোঃ খলিলুর রহমান, কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা জেলায় প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এবং ঘটছে প্রাণহানি। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে প্রায় বেসামাল হয়ে পড়েছে কুমিল্লা।

এরইমধ্যে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন এলাকাসহ জেলার ১৭ টি উপজেলায় রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২১৭ জনে। সংক্রমণ আর উপসর্গ নিয়ে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকা মৃত্যু ছাড়িয়ে যাচ্ছে শতাধিক। এর মধ্যে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৬৩ জন।

গতকাল বুধবার কুমিল্লায় ৯১ জন রোগী শনাক্ত হয়। এদিন জেলায় করোনার সংক্রমণ, উপসর্গ নিয়ে মারা যান ৭ জন। তার আগের দিন মঙ্গলবার কুমিল্লায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১১৭ জন। সংক্রমণ, উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের।

এছাড়া প্রতিদিনই করোনো সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে একাধিক মৃত্যুর তথ্য মিলেছে কুমিল্লায়। কুমিল্লার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মোতাবেক, রমজানের ইদের পর থেকেই কুমিল্লায় লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই যাচ্ছে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।

পাশাপাশি করোনা আক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে ঘটছে প্রাণহানি। জেলা সিভিল কার্যালয় এর সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী বুধবার পর্যন্ত কুমিল্লায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২২১৭ জন। এর মধ্যে ৬৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

অবশ্য জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ প্রদত্ত মৃত্যুর তালিকা ছাড়াও সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে অন্তত মৃত্যুর তথ্য মিলেছে প্রায় ৪০ জনের মতো, যাদের অনেকে কুমিল্লায় আক্রান্ত হয়ে জেলার বাইরে মারা গেছেন, আবার অনেকে জেলার বাইরে থেকে আক্রান্ত হয়ে কুমিল্লা এসে মারা গেছেন।

এসব ব্যক্তিদের তালিকাভুক্ত করে না জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। গত পাঁচ দিনে কুমিল্লায় করোনার সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে অন্তত ৫১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এরমধ্যে করোনার সংক্রমণে ১৫ জন এবং উপসর্গ নিয়ে বাকিদের মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল বুধবার কুমিল্লায় করোনায় ১ জন এবং উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৬ জন। উপসর্গ নিয়ে তার আগেরদিন মঙ্গলবার ৮ জন, সোমবার ৭ জন, রোববার ৭ জন এবং শনিবার ১০ জন মারা যান.

এ সময় করোনার সংক্রমণ নিয়ে আরও অন্তত ১২ জন মারা গেছেন। হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাক্তার সাজেদা খাতুন গত পাঁচ দিনে কুমিল্লা মেডিকেলে কর্ণার উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসা ২৫ জন রোগী মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বুধবার করোনার সংক্রমণে ১ জন এবং উপসর্গের ৬ জন, মঙ্গলবার সংক্রমণে ৩ জন এবং উপসর্গ নিয়ে আরও ৮ জন মারা গেছেন।

এছাড়াও ১৬ জুন,৮ জুন, ১৫ জুন ও ১৪ জুন ৩ জন করে মারা যান। এই পাঁচ দিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর বিষয়টিও ডাক্তার সাজেদা খাতুন নিশ্চিত করেন।

কুমিল্লার বাসিন্দা যারা ঢাকায় কিংবা অন্য জেলায় বসবাস করেন এবং সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান, তাদের সংখ্যা কুমিল্লা জেলার তথ্যে আসেনা। এটা ঢাকায় হিসেব রাখা হয়।

আমরা কেবল কুমিল্লায় আক্রান্ত এবং মৃত্যুর তথ্য সংগ্রহ করি আর এই কথাটি জানিয়েছেন আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা প্রসঙ্গে ডাক্তার শাহাদাত হোসেন।