কক্সবাজার জেলায় জন্ম গ্রহন সত্যিকার অর্থে মহা পাপ

এই কক্সবাজার জেলা এক সময় মানুষের কাছে স্বপ্নে জায়গা ছিলো,চিন্তা চেতনা থাকতো হানিমুন নামক শব্দটা কক্সবাজারে হবে””কিন্তু আজ সেই জেলা মানুষের কাছে রোহিঙ্গা জেলা নামে পরিচিত “” যখন থেকে রোহিঙ্গারা কক্সবাজার জেলা তথা উখিয়া টেকনাফে অবস্থান করে তখন থেকে শুরু হয় সাধারণ মানুষ উপর অত্যাচার””প্রতিটি মৌলিক চাহিদা থেকে বঞ্চিত সাধারণ কেটে খাওয়া মানুষ! আজ প্রত্যেকটি বাজার রোহিঙ্গাদের দখলে””বাজারে পণ্য আসার আগে চড়া দামে কিনে নিচ্ছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী”এতে শেষ নয়,তাদের সাথে সাথে অনেক ব্যবস্যায়ী সিন্ডিকেট করে সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে””যারা দিন মজুর তাদের প্রথম চাহিদা ছিলো খাদ্য, কিন্তু আজ সেই খাদ্যে পরিবারে যোগান দিতে ব্যর্থ”শুধু কি ব্যবসায়ী?? না তাদের পাশাপাশি বিভিন্ন গাড়ির ড্রাইভারগণ এই সুযোগ নিয়েছে””যেই ভাড়া ছিলো ৫ টাকা তা আজ ১৫ টাকা””যেইখানে তৈল/পেট্রোলের দাম ঠিকি আছে,তারপরও তারা সাধারণ মানুষের উপর জুলম করতেছ””
–এইখানে শেষ নয়”””
আজ বর্তমানে যখন সারা পৃথিবীর মানুষের মনে আতঙ্ক কোভিড-১৯ ভাইরাস নিয়ে, সেখানে এক দল অসাদু বিভিন্ন ভাবে গুজব ছড়িয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করার প্রচারণা চালাচ্ছে ‘”তাদের এই গুজব ছড়ানো বিষয়টি অসাদু কিছু ব্যবসায়ী এবং কিছু ড্রাইভারদের যথেষ্ট সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে যা সাধারণ মানুষদের খুব সহজে জুলুম করা যেতে পারে””এই সুযোগ গ্রহন করতে বাদ পড়ে নাই কক্সবাজার জেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মহল এবং টপ হিরো ড্রাইভারগণ “” আজ প্রতিটি মুদির দোখানে পণ্য সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে ৩ দিগুণ দামে,,যদি তার প্রতিবাদ করি তাহলে, ঐ দোকানদারগণ ডাইরেক্ট বলে আপনার ইচ্ছা হলে নেন না, হয় অন্য কোন দোখানে যান””তারা আজ এই কথা বলতে পারে শুধুমাত্র রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কারণে,,কেননা তারা জানে আজ উখিয়া টেকনাফের সাধারণ ঐ সব পণ্য না কিনলে টিকি রোহিঙ্গারা কিনে নিয়ে যাবে”তাদের অসৎ সঙ্গী হিসাবে রাস্তার জুলুম করতেছে ড্রাইভার””আজ যখন কোভিড-১৯ /করোনা ভাইরাসের ঝুকি কমাতে যখন কক্সবাজার জেলা প্রশাসণ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে টমটমগাড়িতে ৪ জন এবং সিএনজি তে ৩ জনের বেশি নেওয়া যাবে না,,তখনই এই অসাদু ড্রাইভার গণ গাড়ি ভাড়া কে দ্বিগুন করে সাধারণ মানুষের উপর জুলুম শুরু করে,যেইখানে ১০ টাকা ভাড়া তা আজ ২০ টাকা,যেইটা ছিলো ৮৫ টাকা তা আজ ১৫০ টাকা””
আমরা সাধারণ মানুষ কি সারা জীবন এই সমস্ত সমস্যা সম্মুখীন হতে থাকবো সারা জীবন?
আমরা কি পাপ করেছি কক্সবাজার জন্ম গ্রহন করে??
কবে মুক্তি পাবো এই পাপ থেকে.??
কবে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশে প্রতিটি নাগরিক তার নিজস্ব মৌলিক চাহিদা পুরাপুরি পুরণ করতে পারবে??
আমরা সাধারণ জনগণ এই প্রশ্নের জবাব কোথায় পাবো??আমাদের পাশে কে দাঁড়াবে?? কে আমাদের মুক্তি দাবি নিয়ে রাজপথে নামবে??
আমরা সাধারণ জণগণ ভালো করে জানি কেউ সমস্যা সমাধান করতে এগিয়ে আসবে না,,বরং আমার নামে মামলা করার জন্য পথ খুজবে””তাই আমি আশা করি করোনা নামক ভাইরাস আমাদের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের কে হ্রাস করুক,,হাজার বছর বেছে থাকুক ক্ষমতাশীল ব্যক্তিগণ””

লেখক:-
নাছির উদ্দিন
আইন বিভাগ শিক্ষার্থী
কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি”

Related posts

Leave a Comment