একজন আত্ম মানবতার সেবক হুমায়ুন করিম সিকদার

প্রকাশিত: ৭:১৬ অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০২০

কাজী আবদুল্লাহ,চিফ রিপোর্টার:-

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও এর ঐতিহ্যবাহী সিকদার পরিবারের সূর্য সন্তান, আত্ম মানবতার সেবক, হুমায়ুন করিম সিকদার। তিনি
অসহায় হতদরিদ্র সাধারণ মানুষের কল্যাণে দীর্ঘদিন যাবৎ কাজ করে যাচ্ছেন।

যাদের থাকা-খাওয়া ও চিকিৎসা করার মত সামর্থ্য নেই, তাদের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা-খাওয়া, ঘর-বাড়ি, চিকিৎসা খরচ সহ টাকার অভাবে যেসব মেয়েদের বিয়ে হচ্ছেনা তাদের নগদ অর্থ সহায়তা করে যাচ্ছেন। অর্থাভাবে যেন কারো লেখাপড়া বন্ধ না হয় সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিয়ে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়মিত অর্থ দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। প্রতি বছর বৃহত্তর ঈদগাঁও এর সকল ইউনিয়নে হতদরিদ্র শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন। সাধারণ মানুষের আপদে-বিপদে সর্বক্ষণ তিনি পাশে দাঁড়ান, তার কাছে এসে আজও কেউ নিরাস হয়ে খালি হাতে ফেরে যাননি। বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবাদের দিচ্ছেন আর্থিক ও মানবিক সাহায্য।তাই তিনি সাধারণ মানুষের কাছে জনসেবক আদর্শবান মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

এছাড়াও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসা,ওয়াজ মাহফিল,মন্দিরে পর্যাপ্ত পরিমাণের অর্থ দান করছেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ক্লাব, সংঘ, খেলাধুলা, আচার-অনুষ্ঠান সহ দলীয় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে চাহিদামত অর্থ দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

বর্তমান প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের কারনে দিশেহারা সমগ্র বিশ্ব, দিশেহারা
বাংলাদেশও। দেশের এ কঠিন সময়ে অসহায় কর্মহীন হতদরিদ্র প্রায় ২ হাজার পরিবারের মাঝে কয়েকধাপে খাদ্য সামগ্রী চাল,ডাল,তেল
পিয়াজ,আলু লবন ইত্যাদি উপহার হিসেবে পৌঁছিয়ে দিয়েছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে আত্ম মানবতার সেবক
হুমায়ুন করিম সিকদার বলেন, “দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব সাম্প্রতিক সময়ে করোনা প্রাদুর্ভাবের জন্য দেশজুড়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং অফিস আদালত ছুটিসহ সারাদেশে লক-ডাউনের কারনে শ্রমজীবি, দিন-মজুর,অসহায় মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে তাই তাদের পরিবার খাদ্য সংকটের মতো মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখিন হতে হয়েছে।তাই অসহায় কর্মহীন হতদরিদ্র ২ হাজার পরিবারের মাঝে কয়েকধাপে খাদ্য
সামগ্রী চাল,ডাল,তেল পিয়াজ,আলু লবন ইত্যাদি উপহার হিসেবে প্রত্যেকের ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দিয়েছি। আমি আমার কর্তব্যবোধ থেকেই সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছি, ইনশাআল্লাহ যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন অসহায় হতদরিদ্র মানুষদের পাশে থাকবো”।