ঈদগাঁওতে নাসীর কাঠের ব্রীজটি বন্যার পানিতে ভেসে গেল : যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

প্রকাশিত: ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৯, ২০২০

এম আবু হেনা সাগরঃ

ঈদগাঁও মাইজপাড়া-মেহেরঘোনা সংযোগ সড়কে কাঠের ব্রীজটি ভারী বর্ষণে ও পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় ভেসে গিয়ে সম্পূনরুপে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও ইউনিয়নের মাইজ পাড়া-মেহেরঘোনা নদীর উপর ৩৫ মিটার দীর্ঘ একটি ব্রিজের অভাবে নদীর দু’পাড়ের প্রায় ১৫ হাজার মানুষের জীবনযাত্রায় নেমে এসেছে চরম দুর্ভোগ। কবর স্থানে মরদেহ নিয়ে যাওয়া, কৃষিকাজ, ব্যবসা-বাণিজ্য,যাতায়াতসহ সকল কাজে স্থবিরতা নেমে এসেছে। এ কাঠের ব্রীজটি পার হয়ে বৃহত্তর মাইজপাড়া সহ বৃহৎ এলাকার বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলের লোক জনও প্রয়োজনে নানা কাজকর্মে আসা যাওয়া করত। কিন্তু এটি ঢলের পানির তোড়ে ভেসে যাওয়ায় স্থানীয়দের মরন দশায় ভোগতে হচ্ছে। দীর্ঘ তিনবছরও পূরণ হয়নি ব্রিজ নির্মাণ দাবী। জনপ্রতিনিধি আশ্বাসের বাণী শোনালেও তা কেবল হাততালির মাঝে সীমাবদ্ব ছিল। ফলে এই আধুনিক যুগেও উন্নয়ন হয়নি যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ জীবনমানের। মহিলা ইউপি সদস্যা নুর জাহান নিলা কাঠের ব্রীজটি প্রবল বর্ষন আর ঢলের পানিতে ভেসে যাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তবে ইউপি সদস্য বজলুর রশিদ জানিয়েছেন,বৃষ্টি কমলেই পুনরায় নির্মান করা হবে কাঠের ব্রীজটি। এলাকাবাসীর আকুল আবেদন যে,কক্সবাজার সদর রামু আসনের সাংসদ, উপজেলা নিবার্হী কর্মকতা,কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষ চেয়ার ম্যান,ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের নিকট টেকসই একটি ব্রীজটি নির্মাণ করে লোক জন যাতায়াতের সু-ব্যবস্থা সৃষ্টি করা হউক।