নওগাঁ মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি শুরু

মাহবুবুজ্জামান সেতু,নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁ মেডিকেল কলেজে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে নওগাঁ নার্সিং ইনস্টিটিউট হলরুমে মেডিকেল কলেজের প্রথম ব্যাচে আনুষ্ঠানিক ভর্তি কার্যক্রম উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক।

মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আব্দুল বারীর সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন- জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, নওগাঁ সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. রওশন আরা খানম, সিভিল সার্জন ডা. মুমিনুল হক, বিএমএর সভাপতি ডা. হাবিবুর রহমান, স্বাচিবের সভাপতি ডা. আশেক হোসেন ও সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক মুনির আলী আকন্দ প্রমুখ।

উল্লেখ্য,১১টি উপজেলা নিয়ে গঠিত জেলার জনসংখ্যা প্রায় ৩০ লাখ।

একটি মেডিকেল কলেজ ছিল জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি।

অবশেষে তা সত্যি হয়েছে। দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা অবশেষে পূরণ হওয়ায় সব স্তরের মানুষ সরকারের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।

নওগাঁ মেডিকেল কলেজে চান্সপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী ফাহিমের মা ফরিদা ইয়াসমিন জানান, তাদের বাড়ি ঢাকার মিরপুরে।

ছেলের স্কুলের শিক্ষকের কাছে নওগাঁ বিষয়ে কিছুটা ধারণা নিয়েছেন।

প্রথম অবস্থায় থাকা-খাওয়ার জন্য কিছুটা সমস্যা হলেও পরে ঠিক হয়ে যাবে। পরিবারের সবার ইচ্ছা ছিল ছেলে
ডাক্তার হবে।

আল্লাহর অশেষ রহমতে তা পূরণ হতে চলেছে।

শিক্ষার্থী রিদওয়ানা রুমকি জানান, তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। এখানে ভর্তি হতে এসেছেন।

নতুন কলেজের প্রথম ব্যাচে প্রথম ভর্তি ফরম হাতে পেয়েছেন রুমকি। অনেক ইচ্ছা ছিল চিকিৎসক হয়ে মানুষের সেবা করার। আল্লাহ তার সেই ইচ্ছা পূরণ করেছেন। এতেই খুশি তিনি।

মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আব্দুল বারী বলেন, চলতি বছর এমবিবিএস প্রথম ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে মোট ৫০ জন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হবে।

আগামী বছরের জানুয়ারির ১০ তারিখ থেকে ক্লাস শুরু হবে। শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

যেহেতু মেডিকেল কলেজের কোনো ভবন নেই। সেহেতু নওগাঁ সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের দোতলায় পাঠদানের কার্যক্রম চলবে।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের আবাসিকের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হবে।

নওগাঁর জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান বলেন, গত জুলাই মাসে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে আমি নওগাঁয় একটি মেডিকেল কলেজ ও পাহাড়পুরে একটি বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণার দাবি জানিয়েছিলাম।

মেডিকেল কলেজ করার দাবি পূরণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ আমরা।

আগে চিকিৎসার জন্য নওগাঁবাসীকে ঢাকা, রাজশাহী ও বগুড়াসহ বিভিন্ন জেলায় যেতে হতো।

এখন মেডিকেল কলেজ চালু হওয়ায় হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হওয়া থেকে বেঁচে যাবে।

আশা করছি নওগাঁবাসী এখন থেকে সুচিকিৎসা পাবেন।



লেখাটি পঠিত হয়েছে 126 বার।