‘যত ঝুঁকির কারণ হোক না কেন আমি কখনো হিজাব খুলবো না’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

জাকার্তা: ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় চলমান এশিয়ান প্যারা (Asian Para) গেমসে অংশগ্রহণকারী দেশটির একজন অন্ধ ক্রীড়াবিদ তার হিজাব খুলতে অস্বীকার করায় প্রতিযোগিতায় তাকে অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। মিফতাহুল জান্নাহ নামের ওই অন্ধ ক্রীড়াবিদকে চলতি মাসের ৭ তারিখ অযোগ্য ঘোষণা করার পর পরেই ইন্দোনেশিয়ার জনগণ তার প্রতি তাদের অকুণ্ঠ সমর্থন জানিয়েছেন।

২১ বছর বয়সী অন্ধ হিজাবী ক্রীড়াবিদ যখন জুড়ো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য মাঠে নেমেছিলেন তখন খেলা পরিচালনাকারী রেফারি তাকে তার হিজাব খুলে ফেলতে আহ্বান জানান। কিন্তু মিফতাহুল জান্নাহ তার হিজাব খুলতে অস্বীকার করায় রেফারি একদিন পূর্বে জুড়ো প্রতিযোগিতায় হিজাব নিষিদ্ধ করার হয়েছে বলে জানিয়ে তাকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য অযোগ্য ঘোষণা করেন। এর পরেই অন্ধ এই ক্রীড়াবিদ কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

ইন্দোনেশিয়ার সোশ্যাল মিডিয়ায় মিফতাহুল জান্নাহ’র পক্ষে সমর্থন জানিয়ে একজন লিখেন, ‘আপনার হিজাবকে রক্ষা করুন। এশিয়ান গেমসে অংশগ্রহণ করা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু আপনি ইতিমধ্যেই বিজয়ী হয়েছেন।’

আরেকজন লিখেন, ‘আপনিই সত্যিকারের বিজয়ী। হিজাব পরিধান করা চালিয়ে যান এবং কখনো তা খুলে ফেলবেন না। আপনি সৃষ্টিকর্তার কাছে আরো অনেক বেশী সম্মানিত।’

শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য মিফতাহুল গত ১০ মাস ধরে কঠোর অনুশীলন করেছিলেন। কিন্তু সোমবার যখন তার এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের কথা ছিল, এর একদিন পূর্বেই আয়োজক কমিটি প্রতিযোগিতায় হিজাব নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়।

মিফতাহুল তার দেশের একজন জাতীয় চ্যাম্পিয়ন ক্রিড়াবিদ। তিনি বলেন, ‘যত ঝুঁকির কারণ হোক না কেন আমি কখনো হিজাব খুলবো না। হ্যাঁ, আমি খুব খারাপ অনুভব করছি কারণ আমি বিগত ১০ মাস খুব কঠোর পরিশ্রম করেছিলাম। অনেক সময় আমি এত বেশী চর্চা করেছিলাম যে, আমি আমার হাত পর্যন্ত নড়াচড়া করতে পারতাম না।’
‘কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমার সামনে এই ফলাফল আসলো।’

তথাপি চলতি বছরের আগস্ট মাসে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসের তায়কোনদো(Taekwondo একধরনের মার্শাল আর্ট) নামক প্রতিযোগিতায় ইন্দোনেশিয়ার একজন হিজাবী ক্রীড়াবিদ স্বর্ণপদক জয় করেছিলেন।
এ সম্পর্কে এশিয়ান গেমসের জিউ-জিৎসু (jiujitsu, ব্রাজিলিয়ান মার্শাল আর্ট) নামক প্রতিযোগিতার প্যানেল পরিচালক বলেন, ‘এশিয়ান গেমস এবং এশিয়ান প্যারা গেমসের মধ্যকার কোন ধরনের বৈষম্য থাকা উচিত নয়।

তিনি আরো বলেন, ‘যখন আমি এশিয়ান গেমসের জিউ-জিৎসু প্যানেলে ছিলাম সেখানে সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইরান এবং ইন্দোনেশিয়ার অনেক হিজাবী ক্রীড়াবিদ অংশগ্রহণ করেছিলেন এবং সেখানে এ নিয়ে কোনো সমস্যা তৈরী হয় নি। তাহলে হঠাৎ করে এখানে কেন তা সমস্যার কারণ হবে?’

সেন্নি মার্ব্রান যিনি ইন্দোনেশিয়ার প্যারা অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বরত আছেন তাকে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি এ ব্যাপারে ক্রীড়াবিদদের প্রশিক্ষক ভালো বলতে পারবেন বলে দায় এড়িয়ে যান।

তিনি বলেন- ‘এই ইস্যুটি খুবই স্পর্শকাতর। আপনারা প্রশিক্ষককে জিজ্ঞেস করুন।’

দলের প্রশিক্ষক লতিফ জানান, ‘কমিটির নেয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হিজাব নিষিদ্ধ করার বিষয়টি একদিন আগে জানানো হয়েছিল। আমরা মিফতাহুলের বিষয়টির সমাধানের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে কমিটি জানিয়েছে, এই নিয়ম করা হয়েছে নিরাপত্তার স্বার্থে।’

সূত্রঃ amp.scmp.com



লেখাটি পঠিত হয়েছে 208 বার।